ড্র হলো কলকাতা ডার্বি

0
583

 

গতকাল অনুষ্ঠিত কলকাতা লীগের সবচেয়ে আলোচিত খেলা ‘কলকাতা ডার্বি’র ম্যাচের আগে বহু বিশেষজ্ঞই এগিয়ে রেখেছিলেন ইস্টবেঙ্গলকে। সেই তুলনায় টানা ছয়টা ডার্বি অপরাজিত থাকা সত্ত্বেও মোহনবাগান ছিল ‘আন্ডারডগ’হবে নাই বা কেন? সদ্য রাশিয়া ফেরত টাটকা বিশ্বকাপার , জমজমাট মাঝমাঠে উজ্জ্বল ইস্টবেঙ্গল।

কিন্তু মাঠে তার প্রতিফলন দেখা গেল না প্রথমার্ধের ৪৫ মিনিটই দাপট দেখাল মোহনবাগান। মুহুর্মুহু আক্রমনে লাল-হুলুদের রক্ষন ভাগে তখন কাঁপন ধরিয়ে দেয় মোহন বাগান। এই আক্রমনের সুবাদেই ২০ মিনিটে জোরালো এক শটে মোহনবাগানকে ১-০ এগিয়ে দেন পিন্টু মাহাতো। প্রথম গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই ৩০ মিনিট ফের গোল সবুজ-মেরুনদের।এবার কান্ডারি হেনরি কিসেকা।গোটা যুবভারতী তখন মোহনভারতীয়’তে পরিনত। গ্যালারি জুড়ে উৎসব শুরু করে দিয়েছেন বাগান সমর্থকরা। ঠিক সেই সময়ই প্রথমার্ধের একেবারে অন্তিম মুহুর্তে গোলরক্ষক শিল্টন পালের ভুলে ম্যাচে ব্যবধান কমাল ইস্টবেঙ্গল।১২ বছর সবুজ-মেরুনে থাকা মোহনবাগানের ঘরের ছেলে হয়ে ওঠা শিল্টন বলটিকে ঠিক মতো গ্রিপ করতে ব্যর্থ হলে চলতি বলে মাথা ঠেকিয়ে বলকে জালে জড়িয়ে দেন ইস্টবেঙ্গলের কোস্টারিকান বিশ্বকাপার জনি অ্যাকোস্টা। প্রথমার্ধে বুলেট ট্রেনের গতিতে ছুটতে থাকা টিমটা দ্বিতীয়ার্ধে কোন অদৃশ্য মায়াবলে দাঁড়িয়ে গেল বোঝা গেল না।

পরবর্তীতে পুরো দ্বিতীয়ার্ধ জুড়ে দাপট দেখাল ইস্টবেঙ্গল। একের বিরুদ্ধে এক পরিস্থিতিতে ইস্টবেঙ্গলের সিরিয়ার মিড ফিল্ডার আল আমনার নিশ্চিত গোল রুখে দিয়ে যেন প্রথমার্ধের ভুলের কিছুটা প্রলেপ দিলেন শিল্টন । কিন্তু ইস্টবেঙ্গলের দ্বিতীয় গোলটি আসতে বেশি সময় লাগে নি। ৭২ মিনিটে কর্ণার থেকে আসা বলে লালডানমাউইয়া রালতের শট আটকে দিয়েছিলেন শিল্টন,তবে ডিফেন্ডারদের জটলার মধ্যেই ফিরতি বল গোলে পাঠাতে কোনো ভুল রালতে।

২-০ গোলে পিছিয়ে থেকেও যেভাবে খেলায় সমতা ফেরালো ইস্ট বেঙ্গেল তা প্রশংসা যোগ্য।তবে ভারতে সবচেয়ে কাক্ষিত এই ম্যাচটি ড্র হওয়ায় কিছুটা নিরাশ মোহনবাগানের সমর্থকরা।এই তো সুযোগ ছিলো ফুটবলীয় প্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে জয়ের উৎসব করার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here