হ্যাজার্ডে জোড়া গোলে ইউরোপার শিরোপা চেলসির ঘরে

0
87

স্টাফ রিপোর্টার : নিজের ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ খেলতে আজ ইউরোপার ফাইনালে নিজ সাবেক ক্লাব চেলসির বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছিলেন আর্সেনাল গোলরক্ষক পিতর চেক। তবে শেষটা শুভ হলো না তার। ইডেন হ্যাজার্ডের অনদব্য পারফরম্যান্সে আর্সেনালকে ৪-১ গোলে পরাজিত ঘরে ইউরোপা লিগের শিরোপা জয় করলে অল ব্লুজ খ্যাত চেলসি।

প্রথমার্ধের শুরু থেকেই অবশ্য ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নেয় আর্সেনাল। বার বারই বল নিয়ে চেলসির ডিফেন্সে হানা দেয় আবেয়মাং ও লাকাজাত্ত। বিশেষ করে চেলসির লেফট ব্যাকে ফাঁক তৈরি করে নিচ্ছিলো গানাররা। চেলসি গোলরক্ষক দুবার বল ফিস্ট করে ক্লিয়ার না করলে হয়তো গোলের দেখা পেয়েই যেত উনাই ইমিরির শিষ্যরা। তবে ম্যাচে আধ ঘন্টা পার হওয়ার পর খেলায় ফেরে ব্লুজরা। সম্মিলিত কয়েকটি আক্রমনে ভালো সুযোগও তৈরি করে তারা। তবে আর্সেনালের গোলবারের সামনে দেয়াল হয়ে দাড়িয়ে ছিলেন সাবেক চেলসি গোলরক্ষক পিতর চেক। জিরুডের দূর্দান্ত শট বা দিকে ঝাপিয়ে ঠেকিয়ে দেন ৩৭ বছর বয়সী এই গোলরক্ষক। বক্সের বাইরে থেকে নেয়া জাকার গতিময় শট বার ঘেষে বেড়িয়ে যাওয়ায় আবারো লিড না পাওয়ার জ্বালায় পুড়তে হয় আর্সেনালকে। এতে প্রথমার্ধ গোলশূন্যভাবেই শেষ হয়।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমেই দৃশ্যপট পুরোপুরি বদলে যায়। ম্যাচের ৪৯ মিনিটে ডাইভিং হেডে চেলসিকে লিড এনে দেন ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার ওলিভার জিরুড। এরমধ্যে রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করায় হলুদ কার্ড দেখতে হয় চেলসির পেদ্রোকে। তবে ম্যাচের ৬০ মিনিটে হ্যাজার্ডের করা মাইনাসে স্কোর শিটে নাম তুলেন পেদ্রো। এর মাত্র পাঁচ মিনিট পরই পেনাল্টি পায় চেলসি। আর তা থেকে দলকে ৩-০ গোলে এগিয়ে দিয়ে শিরোপার একেবারে কাছে নিয়ে যান হ্যাজার্ড।

ম্যাচের ৬৯ মিনিটি বক্সের বাইরে থেকে আর্সেনালের ইয়োবি একটি দূর্দান্ত ভলিতে গোল করলে ম্যাচে ফেরাড আশা জাগে আর্সেনালের। কিন্তু এর তিন মিনিটের মধ্যে গানারদের সকল আশায় পানি ঢেলে দেন হ্যাজার্ড। জিরুডের চিপ সহজেই জালে পাঠিয়ে নিজের দ্বিতীয় ও দলের পক্ষে চতুর্থ গোল করেন এই বেলজিয়ামের খেলোয়াড়। এরপর আর কোন গোল না হলে ৪-১ এর বড় জয়ে শিরোপা উৎসবে মেতে উঠে সারির শিষ্যরা।

গুঞ্জন অনুযায়ী এটিই ছিলো হ্যাজার্ডের চেলসির জার্সিতে শেষ ম্যাচ। দ্রুতই তার মাদ্রিদের সাথে চুক্তির খবর ঘোষনা কথা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here