সৌম্যের শুরুতেই বাংলাদেশের সম্ভাবনা

0
105

 

আছিফ উদ্দিন জয় :দরজায় কড়া নাড়ছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯। বিগত যেকোনো আসরের থেকে এবারের আসরে টাইগারদের উপর প্রত্যাশাটা অনেক বেশি সমর্থকদের। সেই প্রত্যাশা পূরণ করার দায়িত্ব নিয়ে যে ১৫ জন ক্রিকেটার যাচ্ছে লাল-সবুজের প্রতিনিধি হয়ে বিশ্বমঞ্চ মাতাতে তাদের নিয়ে স্পোর্টস নিউজ বাংলাদেশের ধারাবাহিক পনেরো প্রতিবেদনের দশম পর্বে আজ থাকছে ওপেনার সৌম্য সরকারের কথা।

দ্রুত রান তোলার জন্য বাংলাদেশ দলে যে কয়েকজন ব্যাটসম্যানের উপর দায়িত্ব থাকবে তাদের মধ্যে সৌম্য সরকার হচ্ছেন অন্যতম একজন। ১৯৯৩ সালে সাতক্ষীরায় জন্ম নেয়া এই ক্রিকেটার অনূর্ধ্ব-১৯ ও ঘরোয়া লীগে পারফরম্যান্স করে ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশ দলের স্কোয়াডে ডাক পান। সেই সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে অভিষেকের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু হয় সৌম্যের। পরের বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া – নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপে মাত্র এক ওয়ানডে খেলার অভিজ্ঞতা নিয়ে চমক হিসেবে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সুযোগ পান সৌম্য। সেই বিশ্বকাপ সৌম্যের ব্যাটে
খুব বড় ইনিংস না থাকলেও ছোট ছোট ইনিংসে নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ জানিয়ে দলে জায়গা করে নেন এই বামহাতি হার্ড হিটার ব্যাটসম্যান।

অভিষেকের পর ২০১৫ সালে বিশ্বকাপ পরবর্তী ভারত, পাকিস্তান আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ গুলোতে সৌম্যর ব্যাট ছিলো দারুণ ছন্দে। ওপেনিংয়ে তামিমের সাথে বোঝাপড়া যেমন ভালো ছিলো তেমনি দলে নিজের প্রয়োজনীয়তাও জানান দেন এই ক্রিকেটার।

তবে মুদ্রার উল্টো পিঠ দেখতেও বেশি সময় লাগেনি সৌম্যের। জাতীয় দলে নিজের ভালো শুরুটা ধরে রাখতে পারেননি বেশি দিন। হয়েছেন সমালোচিত মাঝে বাদ পড়েন দল থেকেও। ব্যাটিংয়ে ডিফেন্সিভ টেকনিকে সমস্যা, ইনিংসের শুরুতেই উইকেট দিয়ে আসা, ভালো শুরু ধরে রাখতে না পারা এসব কারণেই বাদ পড়তে দল থেকে। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো পারফরমেন্স করে আবারো দলে সুযোগ পান সৌম্য।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সৌম্য এখন পর্যন্ত ওয়ানডে খেলেছে ৪৪ টি। ৪৪ ওয়ানডে থেকে ৩৬.৬৭ গড় আর ৯৯.৯৩ স্ট্রাইক রেটে সৌম্যের রান ১৪৬৭। প্রায় ১০০ স্ট্রাইক রেটই বলে দলে কতটা আগ্রাসী হয়ে সৌম্য খেলতে পছন্দ করেন। কিছুদিন আগে শেষ হওয়া ডিপপিএলে দেশে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরি করেন এই বামহাতি ব্যাটসমান। সাম্প্রতিক সিরিজ গুলোতেও সৌম্যের ব্যাট বেশ ফর্মে আছে। সদ্য শেষ হওয়া ট্রাইনেশন সিরিজেও করেন তিনটি অর্ধশত রান। পরিসংখ্যান আর বর্তমান ফর্ম দুইটাই বিশ্বকাপে তামিমে সঙ্গী হিসেবে লিটনের চেয়ে এগিয়ে রাখছে সৌম্যকে। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি মিডিয়াম পেস বোলিংও করে থাকেন সৌম্য। যেটা দলের বোলিং লাইনআপে হতে পারে বাড়তি অফশন।

বিশ্বকাপে ছন্দে থাকবে সৌম্যর ব্যাট এমনটাই চাওয়া সবার। কারন ব্যাটিংয়ে তার ভালো শুরু বড় সংগ্রহ তাড়া করার সময় যেমন ভিত গড়ে দিতে পারে তেমনি আগে ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহ সংগ্রহেরও ভিত গড়ে দিতে পারে টাইগারদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here