সুযোগ পেয়েও এমবাপ্পেকে কেনেনি বার্সা!

0
300

কিলিয়ান এমবাপ্পে। ইউরোপের বড় ক্লাবগুলোর জন্য এখন সবচেয়ে লোভনীয় খেলোয়াড়। ছবি: এএফপিকিলিয়ান এমবাপ্পে। ইউরোপের বড় ক্লাবগুলোর জন্য এখন সবচেয়ে লোভনীয় খেলোয়াড়। ছবি: এএফপি

কিলিয়ান এমবাপ্পেকে কিনতে চেয়েও পিএসজির সঙ্গে টক্কর দিতে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদ। কেনার সুযোগ পেয়েছিল বার্সেলোনাও। কিন্তু সুযোগ পেয়েও তারা এমবাপ্পের বদলে ওউসমানে ডেমবেলেকে দলে নিয়েছে

হোসে মারিয়া মিনগুয়েয়া বলেই উড়িয়ে দেওয়ার জো নেই। বার্সেলোনায় লিওনেল মেসির আসার নেপথ্যে হাত রয়েছে বহু প্রতিভাধর এই স্প্যানিশ ব্যক্তির। কাতালান ক্লাবটিকে রোনালদিনহোর খবরটা প্রথম তিনিই দিয়েছিলেন। ডিয়েগো ম্যারাডোনাকে ন্যু ক্যাম্পের পথ দেখিয়েছেন মিনগুয়েয়া। এই মিনগুয়েয়াই জানালেন, বার্সেলোনা কিলিয়ান এমবাপ্পেকে দলে ভেড়ানোর সুযোগ পেয়েও কেনেনি!

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম স্পোর্তে লেখা কলামে এ কথা জানিয়েছেন মিনগুয়েয়া। গত মৌসুমে ফরাসি এ তারকাকে কেনার সুযোগ পেয়েছিল বার্সা। কিন্তু এমবাপ্পের সঙ্গে নিজেদের খেলার ধাঁচে মিল খুঁজে পায়নি কাতালান ক্লাব। আর তাই এমবাপ্পের বদলে ওউসমানে ডেমবেলেকে দলে ভেড়ায় বার্সা। আজ সেই এমবাপ্পে দলবদলের বাজারের সবচেয়ে আকাঙ্ক্ষিত নাম। নিজের দিনে এমবাপ্পে কী করতে পারেন, তিনি কোন মাপের খেলোয়াড়, সেটি বিশ্বকাপেই দেখা গেছে।

মিনগুয়েয়াকে পিএসজি (তখন মোনাকো) তারকার খোঁজ প্রথম এনে দিয়েছিলেন তাঁরই ছেলে, যিনি নিজেও একজন এজেন্ট। এ প্রসঙ্গে কলামে মিনগুয়েয়া লিখেছেন, ‘এমবাপ্পের পরিবারের আইনি ব্যাপারগুলো যিনি দেখতেন, তাঁর সঙ্গে কথা হয়েছিল। সেই আইনজীবী ওকে (মিনগুয়েয়ার ছেলে) বলেছিলেন, বার্সায় স্বাক্ষর করা নিয়ে এই ছেলে (এমবাপ্পে) ভাবছে না। কারণ, সেই সময় আক্রমণভাগের তিনটি পজিশনে নেইমার, মেসি ও লুইস সুয়ারেজের মতো খেলোয়াড় ছিলেন।’

কিন্তু ঘটনার এখানেই শেষ নয়। এমবাপ্পের বাবা ফোন নম্বর দিয়ে রেখেছিলেন মিনগুয়েয়াকে। মোনাকো ফরোয়ার্ডের প্রতি যদি কোনো বড় দল আগ্রহ দেখায় সে জন্য। মিনগুয়েয়া তাঁর কলামে লিখেছেন, এমবাপ্পের বাবার এই বার্তা বার্সার পরিচালকমণ্ডলী পর্যন্ত পৌঁছেছিল। তাঁর ভাষায়, ‘সেই বার্তাটা পরিচালকমণ্ডলী থেকে টেকনিক্যাল কমিটি পেয়েছিল। কিন্তু তাঁরা দ্বিধায় ছিল, ডেমবেলে না এমবাপ্পে?’

শেষ পর্যন্ত ডেমবেলেকেই বেছে নিয়েছে বার্সা। এমবাপ্পের চেয়ে ২ বছর বড় ফরাসি এই ফরোয়ার্ড বার্সায় যোগ দেওয়ার পর থেকেই চোটে ভুগেছেন। গত মৌসুমে ফর্মও তেমন ভালো ছিল না। আর এমবাপ্পে তো এখন ইউরোপিয়ান ফুটবল বাজারে ‘হট কেক’। বার্সা কি এই এমবাপ্পেকে দেখে সেই দ্বিধার জন্য আক্ষেপ করে? কে জানে!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here