সালাহর জোড়া গোলে নাটকীয় জয় লিভারপুলের

0
42

তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ চ্যাম্পিয়নস লীগে ই গ্রুপের ম্যাচে ৪-৩ গোলে সালসবুর্ককে হারাল লিভারপুল। জোড়া গোল করেন লিভারপুলের মোহামেদ সালাহ। একটি করে গোল করেন সাদিও মানে ও অ্যান্ড্রু রবার্টসন। অস্ট্রিয়ার দল সালসবুকের পক্ষ থেকে গোল দেন হি-চান হওয়াং, তাকুমি মিনামিনো ও আর্লিং হলান্ড।

আনফিল্ডে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে শুরু থেকে জমে ওঠে ম্যাচ। খেলার শুরুতে আধিপত্য বিস্তার করে খেলতে থাকে স্বাগতিকরা। ৯ মিনিটে সাদিও মানের গোলে লিড নেয় লিভারপুল। মাঝ মাঠে সাইড লাইনে বল পেয়ে তিনি কাট করে ভেতরে ঢুকে সঙ্গে লেগে থাকা ডিফেন্ডারকে এড়িয়ে বল বাড়ান রবের্তো ফিরমিনোকে। ব্রাজিল ফরোয়ার্ডের কাছ থেকে ফিরতি বল পেয়ে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে জাল খুঁজে নেন সেনেগালের ফরোয়ার্ড মানে।

২৫তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে লিভারপুল। জর্ডান হেন্ডারসনের কাছ থেকে বল পেয়ে নিচু ক্রসে রবার্টসনকে খুঁজে পান রাইট ব্যাক ট্রেন্ট অ্যালেকজান্ডার-আর্নল্ড। গোল দেন স্কটিশ লেফট ব্যাক রবার্টসন।  বিরতিতে যাওয়ার আগে ৩-০ তে লিড এনে দেন সালাহ। মানের ক্রসে ফিরমিনোর হেড কোনোমতে ঠেকান সালসবুর্কের গোলরক্ষক। ফিরতি বলে সালাহর বুলেট গতির শট তার হাত ছুঁয়ে জড়ায় জালে।

৩৯ মিনিটে রেডবুলের হোয়াংয়ের গোলে খেলায় ফেরে রেডবুল। এনোক মউয়েপুর কাছ থেকে বল পেয়ে লিভারপুলের দুই ডিফেন্ডারকে এক ঝটকায় বিভ্রান্ত করে কোনাকুনি শটে জাল খুঁজে নেন দক্ষিণ কোরিয়ান ফরোয়ার্ড। প্রথমার্ধ শেষ হয় ৩-১ এ।

দ্বিতীয়ার্ধে শুরু হয় রেডবুলের তান্ডব। লিভারপুলের রক্ষণভাগে পরপর আক্রমণ করে প্রচণ্ড চাপ তৈরি করে সালসবুর্ক। ৫৬ মিনিটে হোয়াংয়ের বাড়ানো বল বাম কর্নার দিয়ে জালে জড়ান তাকুমি। ৬০ মিনিটে তাকুমির এসিস্টে গোল করে রেডবুলকে সমতায় ফেরান হালান্ড।

এরপর অবশ্য লিভারপুল এগিয়ে যায় সফরকারীদের ভুলে।৬৯ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে আবারও লিভারপুলকে লিড এনে দেন সালাহ।একজন বল ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে পেয়ে যান ফাবিনিয়ো। তার পাস পেয়ে ফিরমিনো ফ্লিকে বল বাড়ান সালাহকে। সঙ্গে লেগে থাকা খেলোয়াড়দের পেছনে ফেলে গোল করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ৪-৩ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে অলরেডরা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here