লড়াইয়ের প্রত্যয়ে আজ মাঠে নামবে আবাহনী

0
175

আজ সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় এএফসি কাপের ইন্টার জোনাল সেমি ফাইনালের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হবে উত্তর কোরিয়ার এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ স্পোর্টিং ক্লাব এবং ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। এই ম্যাচকে সামনে রেখে দুইদলই দীর্ঘদিন ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ঢাকা আবাহনীর কাছে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ অপরিচিত হলেও বাংলাদেশের কাছে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ পরিচিত ক্লাব। এই দলটির বিপক্ষে অতীতে জয়ের রেকর্ড আছে বাংলাদেশের ক্লাবের। ১৯৮৮ সালে সে সময়ের এশিয়ান ক্লাব কাপ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনাল পর্বে এই এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভকে সাব্বিরের গোলে ১-০ গোলে হারিয়েছিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। মালয়েশিয়ার পাহাংয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছিল ম্যাচটি। মোহামেডানই ১৯৯০ এশিয়ান ক্লাব কাপের চূড়ান্তপর্বে গোলশূন্য ড্র করেছিল উত্তর কোরীয় ক্লাবটির সঙ্গে। ১৯৯১ সালের জুলাইয়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিত চূড়ান্তপর্বে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ তৃতীয় হয়েছিল। তবে এবারের প্রেক্ষাপট কিছুটা আলাদা। এবার প্রচন্ড শক্তিশালী দল এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ। এই দলে রয়েছে উত্তর কোরিয়ার জাতীয় দলের ৮ জন ফুটবলার। এবারের এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ ক্লাবের পারফরমেন্স ছিল দুর্দান্ত। ছয় ম্যাচে পাঁচ জয়ের বিপরীতে তারা ম্যাচ হেরেছে মাত্র একটি। ঘরোয়া লিগে এগারোবার চ্যাম্পিয়ন হওয়া কোরিয়ান ক্লাবটিতে নেই কোনো বিদেশি খেলোয়াড়। এবারের এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে দুর্দান্ত ফুটবল খেলেছে বাংলাদেশ প্রতিনিধিরাও। ছয় ম্যাচে চার জয় ও একটি ড্রয়ের বিপরীতে একটি মাত্র ম্যাচ হেরে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন।

অন্যদিকে আবাহনী তাদের অন্যতম সেরা তারকা মাসীহ সাইঘানি কে ধরে রাখতে ব্যর্থ হয়েছে। পাশাপাশি এবারের বিদেশি রিক্রুট তেমন একটা ভালো না। নতুন রিক্রুট ২১ বছর বয়সী মিডফিল্ডার লি দক্ষিণ কোরিয়ার সর্বোচ্চ ‘কে’ লিগে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। এই দুজনের সঙ্গে পুরোনো খেলোয়াড় হিসেবে আছেন নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার সানডে চিজোবা ও হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড কেভিন বেলফোর্ট।

তবে ডিফেন্স নিয়ে সমস্যায় আছে ঢাকা আবাহনী। ইঞ্জুরির কারণে নেই তপু বর্মন এবং আতিকুর রহমান ফাহাদ। মামুনুল ইসলাম ও থাকতে পারেন দলের বাহিরে। অন্যদিকে নিষেধাজ্ঞার কারণে নতুন রিক্রুট এল নাসেরকে পাবেনা আবাহনী। ২০১৮ সালের এএফসি কাপে মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ক্লাবের হয়ে খেলার সময় লাল কার্ড দেখেন এই মিশরীয় ডিফেন্ডার। সে বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় জায়ান্ট বেঙ্গালুরুর এফসির বিপক্ষে ৬০ মিনিটের সময় দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। ফলে সেই লাল কার্ডের জন্য ২১ আগস্ট ঢাকায় আবাহনীর জার্সিতে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভের বিপক্ষে মাঠে নামা হবেনা এলদিন নাসেরের। তাই বাধ্য হয়েই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার কোরিয়ান লি কে দেখা যেতে পারে সেন্টার ব্যাক পজিশনে। মিশরীয় খেলোয়াড়টির অন্তর্ভুক্তিকালে বিষয়টি খেয়াল করেনি আবাহনী কর্তারা। তাই গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে ভুলের বড় মাসুলই দিতে হবে তাদের।

এই ম্যাচ সামনে রেখে দুইদলের কোচ ই কিছুটা ডিফেন্সিভ ছিলেন নিজের মতামত প্রকাশে। আবাহনী কোচ মারিও লেমোস জানান, ‘এই ম্যাচ আমাদের জন্যে কিছুটা কঠিন হবে কারণ প্রতিপক্ষ শক্তিশালী দল। তবে আমাদের সম্পর্কে তাদের পর্যাপ্ত ধারণা নেই তাই এই সুযোগ টা আমরা কাজে লাগানোর চেষ্টা করবো পাশাপাশি আমাদের খেলোয়াড়দের ও দায়িত্ব নিতে হবে নিজ নিজ পজিশনে।’

অন্যদিকে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ ক্লাবের কোচ জানান, ‘আমরা আমাদের সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়ে এসেছি তবে সত্যি বলতে ঢাকা আবাহনী সম্পর্কে পর্যাপ্ত ধারণা নাই। এছাড়া এখানে মাঝেমধ্যে বৃষ্টি হয় তাই এটা আমাদের কিছুটা সমস্যার তৈরি করবে। তাই আপাতত ড্র করতে পারলেই নিজেদের নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট থাকবো।’

আবাহনী এবং এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ ক্লাবের ফিরতি লেগ হবে উত্তর কোরিয়ায় এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ ক্লাবের ঘরের মাঠে ২৮ এ আগস্ট। তবে এর আগে আজ ঘরের মাঠে নিজেদের প্রমান করতে মরিয়া বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা। লড়াইয়ের প্রত্যয় নিয়েই আজ মাঠে নামবে আকাশী নীল বাহিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here