রেকর্ডরানে চাপা পড়লো ভাইকিংস

0
124

স্টাফ রিপোর্টারঃ ঘরের মাঠে ভাইকিংস কে সমর্থন দিতে এসেছিলো গ্যালারি ভর্তি দর্শক। শুরু থেকেই গ্যালারীর চিৎকার বে অফ বেংগলের ঢেউয়ের মতো ছড়িয়ে যাচ্ছিলো সবদিকে। তবে সে ঢেউ থামাতে সময় নেয়নি রংপুর রাইডার্স।

ম্যাচের শুরুতেই টস জিতে বোলারদের হাতে বল তুলে দেন ভাইকিংস ক্যাপ্টেন মুশফিক। শুরুতেই গেইল কে ফিরিয়ে দিয়ে সেই আস্থার প্রতিদান ও দেন পেস বোলার রাহী। কিন্তু সেই শেষ তারপরেই শুরু হেলস আর রুশো তাণ্ডব। জহুর আহম্মদ চৌধুরী স্টেডিয়াম কে স্তব্ধ করে দেন দুজন মিলে। চারপাশে মারতে থাকেন একেরপর এক বাউন্ডারি আর ওভার বাউন্ডারি।

রাইডার্সের হয়ে এলেক্স হেলস ১১ চার, ৫ ছয়ে ৪৮ বলে খেলেছে ১০০ রানের ইনিংস।

তার আরেক সতীর্থ্য রাইলি রুশো ৫১ বলে ৮চার, ৬ ছয়ে ১০০* রানের ইনিংস খেলে ছিলো অপরাজিত।

হেলস রুশো কীর্তিতে আজ রংপুর রাইডার্স চট্টগ্রাম ভাইকিংসের বিপক্ষে রানের পাহাড় করে ২৩৯/৪; এটি বিপিএলের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

আজকেরটা নিয়ে টি২০ ক্রিকেটে একই ইনিংসে দুটো সেঞ্চুরির ঘটনা তিনবার। এর আগে কেভিন ও’ ব্রায়েন, হ্যামিশ মার্শাল করেছে গ্লস্টারশায়ারের হয়ে এবং রয়্যাল চ্যালেঞ্জোর্স বেঙ্গালুরুর হয়ে করেন আব্রাহাম বেঞ্জামিন ডি ভিলিয়ার্স এবং বিরাট কোহলি।

আজ এলেক্স হেলস ও রাইলি রুশো দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১৭৪ রানের জুটি গড়ে। এটি বিপিএলের দ্বিতীয় সর্বাধিক রানের জুটি। সর্বোচ্চ দ্বিতীয় উইকেটে একই দলের গেইল ম্যাককালামের ২০১*। যেটা করেছিলো বিপিএলের গত আসরে।

মূলত এক ইনিংস শেষে এই দুইজনের রেকর্ড রানের নীচেই চাপা পড়ে যায় ভাইকিংস।

জবাব দিতে নেমে ওভার প্রতি রান তোলার প্রতি নজর দিতে গিয়ে ভাইকিংস হারিয়েছে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট। সেই সাথে কখনোই পারেনি ওভারের সাথে পাল্লা দিয়ে রানতুলতে। তার উপর গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতো ফ্রাইলিংক ছিলো ইঞ্জুর্ড। একমাত্র ব্যতিক্রম চট্টগ্রামের ছেলে ইয়াসির। তার ৬ চার আর ৩ ছয়ে সংগ্রহ ৪৮ বলে ৭৮। আর শেষদিকে কেউ রান করতে না পারলে ২০ ওভার শেষে ১৬৭ রানে থামে ভাইকিংস।

তবে ম্যাচ হেরেও এখনো পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষেই রয়েছে ভাইকিংস।
স্কোরঃ রাইডার্স ২৩৯/৪
হেলস ১০০
রুশো ১০০
রাহী ৩৫/২।
ভাইকিংস ১৬৭/৮
রাব্বী ৭৮।
ম্যাশ ৩৪/৩।

ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ এলেক্স হেলস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here