রুবেলের পেসই বিশ্বকাপের বড় প্রত্যাশা

0
41

 

আসিফ উদ্দিন জয়: দরজায় কড়া নাড়ছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯। বিগত যেকোনো আসরের থেকে এবারের আসরে টাইগারদের উপর প্রত্যাশাটা অনেক বেশি সমর্থকদের। সেই প্রত্যাশা পূরণ করার দায়িত্ব নিয়ে যে ১৫ জন ক্রিকেটার যাচ্ছে লাল-সবুজের প্রতিনিধি হয়ে বিশ্বমঞ্চ মাতাতে তাদের নিয়ে স্পোর্টস নিউজ বাংলাদেশের ধারাবাহিক পনেরো প্রতিবেদনের দ্বিতীয় প্রতিবেদনে আজ থাকছে অভিজ্ঞ ফাস্ট বোলার রুবেল হোসেনের কথা।

১৯৯০ সালের ১ লা জানুয়ারি খুলনার বাগেরহাটে জন্ম নেয়া এই ক্রিকেটারের ক্রিকেট অঙ্গনে প্রবেশের সুযোগ হয় বিসিবির আয়োজিত ট্যালেন্ট হান্ট প্রোগ্রামের মাধ্যমে। ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় রুবেল হোসেনের।

ক্রিকেটের অন্য দুই ফরমেটের তুলনায় ওয়ানডেতেই বেশি উজ্জ্বল এই স্পিড স্টার। এখন পর্যন্ত খেলা ৯৭ ওয়ানডে থেকে ৫.৬৩ ইকোনমিতে ১২৩ উইকেট শিকার করেছে এই বোলার যার মধ্যে রয়েছে ২০১৩ সালে ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি হ্যাট্রিক।

নিয়মিত ভাবে একটা নির্দিষ্ট গতিতে বল করার ক্ষমতা বর্তমান বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থাকা বোলারদের মধ্যে শুধু রুবেলেরই রয়েছে। ইংলিশ কন্ডিশনে অধিনায়ক মাশরাফির বোলিং আক্রমণের বড় হাতিয়ার হতে পারেন রুবেল। প্রয়োজনের সময় উইকেট নিতে পারার দক্ষতাও রুবেলের বোলিংয়ের অন্যতম ভরসার জায়গা।

এইবারের বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার মাধ্যমে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বআসরে খেলার সুযোগ পেতে যাচ্ছেন রুবেল।যেটির শুরু হয়েছিল ২০১১ বিশ্বকাপে। ঐ বিশ্বকাপে রুবেল ঐভাবে নিজেকে মেলে ধরতে না পারলেও ২০১৫ বিশ্বকাপে এসে নিজের জাত চেনান এই বোলার। ঐ বিশ্বকাপে ঐতিহাসিক ইংল্যান্ড বদের ম্যাচে রুবেলের বোল হাতে ৪ উইকেট সেদিন জয় এনে দিয়েছিল টাইগারদের।

ইংল্যান্ডের অতীত পরিসংখ্যান খুব বেশি রুবেলের পক্ষে কথা না বললেও অভিজ্ঞতা এবং সময়ের সাথে আরো পরিনত হওয়া রুবেল নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়ে টাইগারদের বোলিং আক্রমণে নিজের সেরা ভূমিকা রাখবে এটাই প্রত্যাশা দল ও সমর্থকদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here