বেকারের বীরত্বে কোপার সেমিতে ব্রাজিল

0
119

স্পোর্টস ডেস্কঃ সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে এগিয়ে থাকা প্যারাগুয়ে ম্যাচ যখন ট্রাইবেকারে নিয়ে গেল, তখন ব্রাজিল সমর্থকদের মনে উঁকি দিচ্ছিলো আবারে বিদায়ের ঘন্টা। কিন্তু না! এবার তা হতে দেননি ব্রাজিল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার। পুরো সময় ম্যাচে গোলশূন্য থাকার পর পেনাল্টি শুট আউটে দলকে জয় এনে দেন এই অসাধারন গোলরক্ষক।

গ্রেমিও এরেনায় ম্যাচের পুরো নিয়ন্ত্রন নিয়ে খেলে ব্রাজিল। বেশ কয়েকবারই বিপদে পড়তে হয় প্যারাগুয়ে ডিফেন্সকে। ম্যাচের শুরুতেই ডিবক্সের মধ্যে পাওয়া সুযোগ হাতছাড়া করেন রবার্তো ফিরমিনো। এতে এগিয়ে যাওয়া হয়নি সেলেসাওদের। ম্যাচের ২৯তম মিনিটে পেরেজের কাছ থেকে বল পেয়ে দূরের পোস্টে শট নেন গঞ্জালেজ। কিন্তু এলিসন বেকারের দুর্দান্ত সেভে রক্ষা পায় ব্রাজিল। এতে গোলশূন্য ব্যবধানেই শেষ হয় প্রথমার্ধ।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই পেনাল্টি অর্জন করে ব্রাজিল। কিন্তু ভিএআ’রের মাধ্যমে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত বাদ দিয়ে তা ফ্রি কিকের সিদ্ধান্তে রূপান্তর করেন রেফারি। ম্যাচের ৫৪তম মিনিটে ফিরমিনোকে ডি-বক্সের কাছে পেছন থেকে বাঁধা দেয়ায় পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি এবং হলুদ কার্ড দেখান ফাউলকারি ফাবিয়ান বালবুয়েনাকে। তবে প্যারাগুয়ের খেলোয়াড়দের প্রবল দাবির মুখে ভিএআরের সহায়তা নিতে বাধ্য হন রেফারি। তবে ফাউল করায় লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় প্যারাগুয়ের বালবুয়েনাকে।

দশজনে পরিণত হওয়া প্যারাগুয়ে দলকে আরো চাপে ফেলে কৌতিনহো-ফিরমিনোরা। ম্যাচের ৬৯ মিনিটে প্রায় দূর থেকে নেয়া আর্থুরের জোড়ালো শট রুখে দেন প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক ফার্নান্দেজ। এর পরপরই ডি-বক্সের মধ্যে জটলা থেকে ফাঁকায় বল পেয়ে যান গ্যাব্রিয়েল হেসুস। কিন্তু তাট লক্ষ্যভ্রষ্ট শটে গোল পাওয়া হয়নি ব্রাজিলের।

ম্যাচের নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষেও গোল না ম্যাচের নিষ্পত্তি করতে টাইব্রেকারের আশ্রয় নিতে হয় রেফারিকে। টাইব্রেকারের প্রথম শটটি নেয় প্যারাগুয়ের গুস্তাভো গোমেজ। কিন্তু ডানদিকে নেয়া শটটি দারুণভাবে ঠেকিয়ে দেন অ্যালিসন। ব্রাজিলের পক্ষে উইলিয়ান প্রথম শটে গোল করলে শুরুতেই ভালো অবস্থানে চলে যায় ব্রাজিল। দ্বিতীয় ও তৃতীয় শটে গোল করে দুই দল। চতুর্থ শটে গোল মিস করে বসেন ব্রাজিলের রবার্তো ফিরমিনো। কিন্তু পরের শটে আবারও প্যারাগুয়ে গোল মিস করলে ব্রাজিলের জয়ের সমীকরন সহজ হয়ে যায়। ব্রাজিলের শেষ শটে গোল করে জয় নিশ্চিত করেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। এতে কোপা আমেরিকার সেমি ফাইনালে পৌঁছে গেল তিতের শিষ্যরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here