বিশ্বকাপ দাবা শেষে দেশে ফিরেছেন ফাহাদ

0
41

স্পোর্টস ডেস্কঃ বিশ্বকাপ দাবায় প্রথম রাউন্ডে দুই পর্বের ম্যাচেই হেরেছেন ফাহাদ রহমান। দাবার বিশ্ব র্যাংকিংয়ের চার নম্বর খেলোয়াড় রাশিয়ান বংশোদ্ভুত ডাচ গ্র্যান্ডমাস্টার আনিশ গিরিংয়ের কাছে হারলেও ইতিবাচক অভিজ্ঞতাই বড় প্রাপ্তি বাংলাদেশি এই দাবাড়ুর।

আনিশের রেটিং ২৭৮০, আর ফাহাদের ২২৫০। বিশ্বকাপে ফাহাদ প্রথম পর্বে ‘কালো’ নিয়ে খেলে ৪৬ চালের পর হার মানেন। আর দ্বিতীয় পর্বে ‘সাদা’ নিয়ে খেলে হেরেছেন ৩৬ চালের পর। প্রথম পর্বে এক পর্যায়ে ড্রয়ের কাছাকাছি চলে গিয়েছিলেন ফাহাদ। কিন্তু সময় স্বল্পতার কারণে পয়েন্ট নিতে পারেননি।

শক্তির দিক থেকে আনিশ গিরিংয়ের সঙ্গে তার বিস্তর ফারাক। এরপরও ৬৪ ঘরের খেলাতে যদি ‘অঘটন’ হয়, এমন প্রত্যাশা নিয়ে বিশ্বকাপ দাবায় অংশ নিয়েছিলেন আন্তর্জাতিক মাস্টার ফাহাদ। যদিও রাশিয়ার খান্তি মানসিস্কের প্রতিযোগিতায় অঘটন ঘটাতে পারেননি বাংলাদেশের এই দাবাড়ু।

দেশে ফিরে বিশ্বকাপ দাবার সেই অভিজ্ঞতা শুনিয়েছেন তিনি। বুধবার দেশের এক জাতিয় দৈনিককে  ফাহাদ বলেছেন, ‘এমন বড় মাপের দাবাড়ুর বিপক্ষে আগে কখনও খেলিনি। শুরু থেকে আমি সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করে গেছি। প্রথম পর্বে সাড়ে ৫ ঘণ্টা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছি। যখন ম্যাচ ড্রয়ের দিকে যাচ্ছিল, তখন আবার আমার হাতে সময় ছিল না। শেষ পর্যন্ত আমাকে হার মানতে হয়েছে। আর দ্বিতীয় পর্বটা ভালো হয়নি। সহজেই হারতে হয়েছে।’

দুই পর্বে হারের পর প্রতিদ্বন্দ্বী আনিশের কাছ থেকে টিপসও পেয়েছেন ফাহাদ। সেটা ভাগাভাগি করেছেন এভাবে, ‘কোথায় ভুল ছিল, ম্যাচ হারের পর তিনি আমাকে দেখিয়ে দিয়েছেন। কিভাবে আরও উন্নতি করতে হবে, সেই বিষয়েও পরামর্শ দিয়েছেন। আসলে এমন বড় মাপের দাবাড়ুর বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতাই অন্যরকম।’

সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘আমি ম্যাচ হেরেছি ঠিকই, কিন্তু শিখেছিও অনেক কিছু। যা ভবিষ্যতে আমার কাজে লাগবে। কেননা এই মাপের দাবাড়ুদের সঙ্গে তো সবসময় খেলা হয় না। আর বিশ্বকাপ তো বড় মঞ্চ। এখানে বিশ্বের সেরা দাবাড়ুরা খেলছেন। এখানকার পরিবেশই ছিল অন্যরকম।’

বিশ্বকাপ খেলার পর ফাহাদের দৃষ্টি গ্র্যান্ডমাস্টার নর্ম অর্জনের দিকে। তার প্রত্যাশা, ‘কিছুদিনের মধ্যে ভারতে গ্র্যান্ডমাস্টার্স প্রতিযোগিতায় অংশ নেবো। সেই আসরে জিএম নর্ম পেলে ভালো লাগবে। এছাড়া অন্য আসরগুলোতেও খেলব। যে করেই হোক আমাকে লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here