ফাইনালে খেলোয়াড়দের সংঘর্ষকে স্বাভাবিক চোখেই দেখছে বাফুফে

0
379

স্পোর্টস ডেস্কঃ  নবাগত  বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী ৩-১ গোলে জয়লাভ করে ফেডারেশন কাপ ২০১৮ এর চ্যাম্পিয়ন হয় শুক্রবা। এই শিরোপা জয়ের ফলে আবাহনী টানা ৩য় এবং সবমিলিয়ে ১১ বারের মত ফেডারেশন কাপ নিজেদের ঘরে তুললো। পিছনে ফেললো যৌথভাবে শীর্ষে থাকা ঐতিহ্যবাহী ঢাকা মোহামেডানকে।

এই ম্যাচেই এক অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে যায়। অতিরিক্ত সময়ের খেলা যখন চলছিলো বল দখলের লড়াইয়ে সুশান্ত ত্রিপুরাকে জীবন হাত দিয়ে আঘাত করেন। এতে সুশান্ত জীবনের দিকে তেড়ে এসে লাথি মারেন। দুইদলের খেলোয়াড়দের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আক্রমণাত্বকভাবে সুশান্তকে এবার পেছন থেকে পিঠে লাথি মারেন আবাহনীর ডিফেন্ডার মামুন মিয়া। এরপর মামুনের সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়েন বসুন্ধরার তৌহিদুল আলম সবুজ। দুই ক্লাবের কর্মকর্তা ও রেফারীরা পরিস্থিতি শামাল দিয়ে দুইদলের খেলোয়াড়দের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি ঠান্ডা করেন। তবে জীবন, সুশান্ত, সবুজ ও মামুন চার জনকেই লালকার্ড দেখান রেফারি। এই সময়ে খেলা বন্ধ থাকে প্রায় ৮-১০ মিনিট।

তবে খেলার মাঠে ফুটবলারদের এমন  আচরণের পরও কোনো ধরণের শাস্তির কথা বিবেচনায় আনছে না লিগ কমিটি। এই ব্যাপারে  সালাম মুর্শেদী বলেন, “এটা খেলার অংশ। আমরা এটা নিয়ে ভাবছি না। মাঠে যে ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। সেটার জন্য কমিটি আছে, তারা দেখবে।”

তবে আবাহনী ক্লাবের পক্ষ থেকে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন আবাহনী ম্যানেজার সত্যজিৎ দাশ রূপু। তিনি বলেন, “মাঠের ভিতর যে অঘটননা ঘটেছে সেটা কখোনই কাম্য নয়। এ ঘটনায় আমাদের খেলোয়াড়দের সতর্ক করা হবে। সেই সঙ্গে যা কিছু করার সব কিছু করা হবে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here