পাকিস্তান; আনপ্রেডিকটেবল চ্যাম্পিয়ন্স

0
27

পাকিস্তান,১৯৯২ এর চ্যাম্পিয়ন্স। এশিয়ার অন্যতম ক্রিকেট পরাশক্তি। পাকিস্তানকে বলা হয় আনপ্রেডিক্টেবল দল। যারা নিজেদের দিনে হারাতে পারে যেকোন দলকে। আবার এই পাকিস্তান এমন কিছু করবে যেটা ক্রিকেট বিশ্বকে অবাক করবে। হারা ম্যাচ জেতা,জেতা ম্যাচ হারা এটা একমাত্র পাকিস্তানের পক্ষেই সম্ভব।

বর্তমানে ওডিআই র‌্যাংর্ঙ্কিংয়ে পাকিস্তানীদের অবস্থান ৬। ইতিহাস বলে ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে পাকিস্তান চ্যাম্পিয়ন হয়। এছাড়াও, ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে রানার-আপ হয়েছিল। ১৯৮৭ ও ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় সহ-স্বাগতিক দেশের মর্যাদা পেয়েছে। ২০০৯ সালের টি২০ বিশ্বকাপ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হয়। এছাড়াও, ২০০৭ সালের উদ্বোধনী প্রতিযোগিতায় রানার-আপ হয়েছিল। ১৯৯৯ সালের এশিয়ান টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে দলটি বিজয়ী হয়। আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ২০১৭ সালে বিজয়ী হয়।

এবারের বিশ্বকাপে পাকিস্তান দলকে নিয়ে খুব বেশি আশা করার সুযোগ নেই। শেষ দশ ম্যাচের সব গুলোতেই হারের মুখ দেখতে হয়েছে সরফরাজ বাহিনীর। এমনকি প্রস্তুতি ম্যাচে হারতে হয়েছে আফগনিস্তানের বিপক্ষে। বিতর্ক ছিলো বিশ্বকাপ দল গঠন নিয়েও। মোহাম্মদ আমির,ওয়াহাব রিয়াজকে দলে নেওয়া, জুনায়েদ খানের দল থেকে বাদ পড়ার পর সামাজিক যোগাযগমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ! সব মিলিয়ে পাকিস্তান কতোটা চাপের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে সেটা অনুমেয়।

তবে সব হিসাব বদলে দেওয়ার ক্ষমতা আছে এই দলটার। ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দলটা নিয়ে সরফরাজের দল চ্যাম্পিয়ন হবে সেটা কজন ভেবেছিলো। পাকিস্তান দলের মূল শক্তি তাদের টপ অর্ডার ব্যাটিং আর তাদের পেস বোলিং লাইনাপ। ফখর জামান,ইমাম উল হক,বাবর আজমরা পাকিস্তান টপ অর্ডারকে করেছে শক্তিশালী। পাকিস্তানের পেস ইউনিট যদি তাদের সেরা ফর্মে থাকে তবে মোহাম্মদ আমির,হাসান আলী,ওয়াহাব রিয়াজরা গুড়িয়ে দিতে পারে যেকোন ব্যাটিং লাইনআপ।

২০১৯ বিশ্বকাপের জন্য পাকিস্তান স্কোয়াড:

সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক), ফখর জামান, ইমাম-উল-হক, আসিফ আলি, বাবর আজম, হারিস সোহেল, শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ হাফিজ, শাদাব খান, ওয়াহাব রিয়াজ, ইমাদ ওয়াসিম, মোহাম্মদ আমির, হাসান আলী, শাহিনশাহ আফ্রিদি, মোহাম্মদ হাসনাইন।

৩১ মে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু হবে পাকিস্তানের। এরপর যথাক্রমে ৩ জুন ইংল্যান্ড, ৭ জুন শ্রীলঙ্কা, ১২ জুন অস্ট্রেলিয়া, ১৬ জুন ভারত,২৩ জুন দক্ষিণ আফ্রিকা,২৬ জুন নিউজিল্যান্ড,২৯ জুন আফগনিস্তান,৫ জুলাই বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে গ্রুপ পর্বের খেলা শেষ করবে পাকিস্তান।

এবারের বিশ্বকাপে পাকিস্তানের তুরুপের তাস হিসেবে থাকবেন যারাঃ

ইমাম উল হক

১২ ডিসেম্বর ১৯৯৫ লাহোরে জন্ম গ্রহণ করেন এই ক্রিকেটার। বামহাতি এই ব্যাটসম্যান ২৪ ম্যাচে ৫৪.৯০ গড়ে করেছেন ১১৫৩ রান। সর্বোচ্চ ১২৮ রান।

ফখর জামান

বাহাতি এই ব্যাটসম্যান ৩৭ টি একদিনের ম্যাচে ১৬৬৪ রান করেছেন ৫০.৪২ গড়ে। ফখর জামানের স্ট্রাইক রেটটাও দারুন ৯৮.৫২। ফাকার জামানের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ২১০ রান এসেছিল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মত বিশ্বকাপে ফখর জামানের ব্যাটের দিকে তাকিয়ে থাকবে পাকিস্তান।

বাবর আজম

পাকিস্তান ব্যাটিং লাইন আপের সব থেকে বড় আস্থার নাম বাবর আজম। ৫১ গড়ে ৬৫ ম্যাচে বাবর আজম করেছেন ২৭৬১ রান। তার সর্বোচ্চ ১২৫ রান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here