জাতীয় নির্বাচনের আগেই হবে হকি ফেডারেশন নির্বাচন,এমনটাই জানিয়েছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার।

যদিও আগের অভিজ্ঞতায় নির্বাচন নিয়ে সংকায় থাকা সহসভাপতি রশিক শিকদার দোষ চাপাচ্ছেন ক্রীড়া পরিষদের দিকেই।

গেল বছর ২৭ আগস্ট নির্ধারিত হয়েছিলো হকি নির্বাচন। বন্যা অজুহাতে অনির্দিষ্টতকালের জন্য যা স্থগিত হয়ে যায়।তারপর পেরিয়ে গেছে এক বছরেরও বেশি সময়। এডহক কমিটির বয়স হয়েছে আট মাস। মাঝে এশিয়া কাপ, এশিয়ান গেমস শেষ। ৩১ সদস্য এডহক কমিটি পরিচালনা করছে ফেডারেশনের কর্মকান্ড। অথচ তিন মাসের জন্য এডহক কমিটি গঠন হলেও নির্বাচন কবে হবে কেউ জানে না। ফেডারেশন কর্তাদের অন্য যেকোনো ফেডারেশনের তুলনায় জটিল হয় হকি নির্বাচন। তারপরেও দ্রুত নির্বাচনের পথে হাটতে চায় ক্রীড়া পরিষদ। এত দিনে যা হয়নি জাতীয় নির্বাচনের আগ মূহুর্তে তা কিভাবে সম্ভব?

ফেডারেশনের কাঠামো ভেঙ্গে সাধারণ সম্মাদক পদ বিলুপ্ত করার গুঞ্জন হকি পাড়ায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here