তুঙ্গে পেরেরা ও মালিঙ্গা স্ত্রীর দ্বন্দ্ব!

0
129

স্টাফ রিপোর্টার : থিসারা পেরেরা ও লাসিথ মালিঙ্গার স্ত্রীর দ্বন্দ্ব নিয়ে শ্রীংলকার বিশ্বকাপ সাফল্য এখন হুমকির মুখে পড়েছে। ড্রেসিংরুমেও এই নিয়ে দ্বন্দ্ব শুরু হতে পারে বলেই ধারনা করা হচ্ছে।

দ্বন্দ্বটা শুরু হয় মালিঙ্গার স্ত্রীর ফেসবুক পোস্ট থেকে। মালিঙ্গার স্ত্রী তানিয়া পেরেরা নিজের ফেসবুকে থিসারা পেরেরার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ আনেন। তিনি বলেন ওয়ানডে দলে নিজের জায়গা পাকাপক্ত করতে শ্রীংলকার ক্রীড়ামন্ত্রীর সাথে দেখা করেছেন থিসারা পেরেরা। এরপরই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন পেরেরা। তিনি আরেকটি ফেসবুক পোস্টে ২০১৮ সালে নিজের পারফরম্যান্স দেখান। এরপর মালেঙ্গার স্ত্রী আরেকটি পোস্টে থিসারা পেরেরাকে আক্রমন করে পোস্ট দেন। এই নিয়ে শ্রীংলকার প্রধান নির্বাহী অ্যাশলে ডি সিলভার নিকট চিঠি লিখেছেন অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরা। তাদের এই ঝামেলাতে বোর্ডের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন তিনি।

তার চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন ,‘অধিনায়কের দায়িত্বপ্রাপ্ত একজনের স্ত্রীর এমন মন্তব্যর পর সাধারন মানুষের আমার প্রতি বিশ্বাস ও নিন্দা করা থেকে আটকে রাখা কঠিন।’ পেরেরা আরো জানান এই সমস্যার কারনে ড্রেসিং রুমেও অস্বিস্তকর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। তিনি বলেন, ‘ওই ঘটনার পর ড্রেসিংরুমে অস্বস্তিকর পরিবেশ তৈরি হয়েছে। দুইজন সিনিয়র যখন দ্বন্দ্বে, তরুণদের জন্য জায়গাটা অস্বস্তির হয়ে উঠেছে। বিবাদ নিয়ে তো আমরা একদল হয়ে খেলতে পারব না। নেতৃত্বের দায়িত্বটা হলো গেম প্ল্যানের আগে দলের স্থিরতা এবং ঐক্য নিশ্চিত করার। দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে, এই মুহূর্তে সেটা আর নেই।’

বিশ্বকাপের আগেই এই সমস্যার সমাধান চেয়েছেন থিসারা পেরেরা। বিশ্বকাপের আগে এই সমস্যা সমাধান না করা গেলে বিশ্বকাপে সাফল্য পাওয়া কঠিন হবে বলে মনে করেন এই শ্রীলংকান অলরাউন্ডার। এই দ্বন্দ্বের কারনে পুরো দেশের ভাবমূর্তিও নষ্ট হতে পারে বলেছেন পেরেরা। এই নিয়ে তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগত বিবাদের জন্য আমি এখন পুরো দেশের কাছে হাসির পাত্র হয়ে আছি এই জিনিসটি হালকাভাবে নেয়ার উপায় নেই। আমি লংকান বোর্ডের কাছে আবেদন জানাচ্ছি দ্রুত কোনো ব্যবস্থা নেয়া হোক।’

এখন দেখার বিষয় হচ্ছে লংকান বোর্ড এটি নিয়ে কি হস্তক্ষেপ গ্রহন করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here