উইম্বলডনের শেষ ষোলোতে সেরানা

0
21

উইম্বলডনে দুর্দান্ত গতিতেই ছুটছেন সেরেনা উইলিয়ামস। টুর্নামেন্টের চতুর্থ রাউন্ডেও জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। শনিবার তৃতীয়পর্বের ম্যাচে আমেরিকান টেনিসের এই জীবন্ত কিংবদন্তি ৬-৩ এবং ৬-৪ গেমে পরাজিত করেন জুলিয়া জর্জেসকে। সেই সঙ্গে জুলিয়া জর্জেসের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত মুখোমুখি হওয়া পাঁচ ম্যাচের সবকটিতেই জয় তুলে নিয়েছেন সেরেনা উইলিয়ামস।

মৌসুমের তৃতীয় গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্ট উইম্বল্ডনের শেষ ষোলোতে সেরেনা উইলিয়ামসের প্রতিপক্ষ এখন কার্লা সুয়ারেজ নাভারো। টুর্নামেন্টের ৩০তম বাছাই নাভারো তৃতীয়পর্বে পরাজিত করেন লরেন ডেভিসকে। শুধু তাই নয়, দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন এ্যাঞ্জেলিক কারবারকেও পরাজিত করেন তিনি। যে কারণে উইম্বলডনে এবার বেশ ফেবারিট এই স্প্যানিয়ার্ড। কোয়ার্টার ফাইনালে উঠার পথে তাই সেরেনা উইলিয়ামসের বিপক্ষে ম্যাচটাও বেশ হাড্ডাহাড্ডি হবে বলে মনে করছেন টেনিসবোদ্ধাদের অনেকে।

সেরেনা ছাড়াও তৃতীয় রাউন্ডের বাধা অতিক্রম করেছেন বারবোরা স্ট্রাইকোভা এবং পেত্রা কেভিতোভা। বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের ৫৪ নম্বরে থাকা এই খেলোয়াড় শনিবার হতাশ করেছেন কিকি বার্টেন্সকে। এদিন তিনি ৭-৫ এবং ৬-১ গেমে টুর্নামেন্টের চতুর্থ বাছাই কিকি বার্টেন্সকে বিদায় করে শেষ ষোলোর টিকেট নিশ্চিত করেন। চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচে এখন তার প্রতিপক্ষ এলিস মার্টেন্স। পেত্রা কেভিতোভা তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচে হারিয়েছেন মাগদা লিনেত্তেকে। দুইবারের উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন এদিন ৬-৩ এবং ৬-২ গেমে হারান পোল্যান্ডের মাগদা লিনেত্তেকে। প্রতিপক্ষকে হারাতে তার সময় লাগে মাত্র ৬৮ মিনিট।

সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে দুটি গ্র্যান্ডস্লাম জিতেছেন কেভিতোভা। তার দুটিই এই উইম্বলডনে। ২০১৪ সালে সর্বশেষ এই টুর্নামেন্টের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছিলেন তিনি। সেই শিরোপা জয়ের পর এবারই প্রথম টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সপ্তাহেও উইম্বলডনে খেলছেন চেক প্রজাতন্ত্রের এই তারকা খেলোয়াড়। তবে তৃতীয় রাউন্ডের বাধা অতিক্রম করে দারুণ খুশি কেভিতোভা। এ বিষয়ে নিজের অভিমত প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এখানে আজই আমার সেরা টেনিসটা খেলেছি। সেও তার সেরাটা খেলছে বলে মনে করি। প্রকৃতপক্ষে আমি যেমনটা প্রত্যাশা করেছিলাম তারচেয়েও সে বেশি ভাল সার্ভ করেছে আজ। যে কারণেই ম্যাচটা কঠিন হয়ে যায়। তবে আমিও তার বিপক্ষে আক্রমণাত্মক খেলতে বাধ্য হই। আর ম্যাচ জয়ের পেছনে এটাকেই মূল কারণ হিসেবে দেখছি আমি।

সংগ্রীহিত : জনকন্ঠ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here