উইম্বলডনের দশটি মেয়ে, রইল না আর কেউ!

0
257

মেয়েদের শীর্ষ বাছাই সিমোনা হ্যালেপ বিদায় নিয়েছেন তৃতীয় রাউন্ড থেকেই। ছবি: রয়টার্সমেয়েদের শীর্ষ বাছাই সিমোনা হ্যালেপ বিদায় নিয়েছেন তৃতীয় রাউন্ড থেকেই। ছবি: রয়টার্স

বিশ্বকাপ ফুটবল ও উইম্বলডন চলছে একই সঙ্গে। দুটি টুর্নামেন্টই একটি বিশেষ পথ অনুসরণ করছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিদায় করে দিচ্ছে ফেবারিটদের। উইম্বলডনে মেয়েদের এককে বিদায় নিয়েছে শীর্ষ বাছাই ১০ জনের ১০ জনই। গত ৫০ বছরে উইম্বলডনও এমন কিছু দেখেনি

রাশিয়া বিশ্বকাপের ছোঁয়া পেয়েছে ইংল্যান্ডও। ফুটবলের সবচেয়ে বড় সংস্করণে এবার ফেবারিটরা বিদায় নিয়েছে একে একে সবাই। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, স্পেন —টিকে নেই কেউ। উইম্বলডনেও হচ্ছে এমন কিছু—মেয়েদের এককে প্রথম ১০ জনই বিদায় নিয়েছেন। উন্মুক্ত যুগে উইম্বলডন মেয়েদের এককে এমন ইতিহাস ছিল না কখনো। ১৯৬৮ সালের পর থেকে প্রতিটি টুর্নামেন্টেই চতুর্থ রাউন্ড পর্যন্ত অন্তত ৪ জন শীর্ষ বাছাই খেলেছে। এবার ভাঙল সে ইতিহাস।

নতুন ইতিহাসের সূচনা করেন ইউক্রেনের এলাইনা ভিতোলিনা। জার্মানির মারিয়ার কাছে ৭-৬ (৭-৩), ৪-৬, ৬-১ গেমে হেরে প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নেন। একে একে তাঁকে অনুসরণ করেছেন শীর্ষ বাছাইয়ের বাকি ৯ জনই।

জার্মানির পথ অনুসরণ করেছেন চারজন। বিশ্বকাপে জার্মানি বিদায় নিয়েছে প্রথম রাউন্ডেই। স্লোয়ান স্টিফেন্স, এলাইনা ভিতোলিনা, ক্যারোলিন গার্সিয়া ও পেত্রা কেপিতোভা—এই চার শীর্ষ বাছাই প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছেন। উইম্বলডনের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন তৃতীয় শীর্ষ বাছাই গারবিনিয়ে মুগুরুজা অবশ্য বিদায় নিয়েছেন দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে।

কোনো বর্তমান চ্যাম্পিয়নই নিজেদের পরাজয় এড়াতে পারেনি। পারেনি জার্মানি, পারেননি গারবিনিয়ে মুগুরুজাও। ছবি: রয়টার্সকোনো বর্তমান চ্যাম্পিয়নই নিজেদের পরাজয় এড়াতে পারেনি। পারেনি জার্মানি, পারেননি গারবিনিয়ে মুগুরুজাও। ছবি: রয়টার্স

ডেনমার্কের ক্যারোলিন ওজনিয়াকিও দেশের সঙ্গে অদ্ভুত মিল রেখে বিদায় নিয়েছেন উইম্বলডন থেকে। ডেনমার্ক বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে। দ্বিতীয় শীর্ষ বাছাই ওজনিয়াকিও বিদায় নিয়েছেন দ্বিতীয় রাউন্ডেই। শীর্ষ বাছাই সিমোনা হ্যালেপ তৃতীয় রাউন্ডেই বিদায় নিয়েছেন। তাঁর পথ ধরেছেন দুই আমেরিকান ভেনাস উইলিয়ামস, ম্যাডিসন। সপ্তম শীর্ষ বাছাই ক্যারোলিন প্লিসকোভা অন্যদের চেয়ে একটু পরে বিদায় নিয়েছেন। তৃতীয় রাউন্ডে ভেনাস উইলিয়ামসের পর চতুর্থ রাউন্ডে প্লিসকোভাকেও বিদায় করে দিয়েছেন কিকি বার্টেন্স।

ফেবারিটদের মধ্যে এখন পর্যন্ত টিকে আছেন সেরেনা উইলিয়ামস আর অ্যাঞ্জেলিকা কারবার। নিজের দেশ আমেরিকা ফুটবল বিশ্বকাপে না থাকলেও টেনিসে লড়ে যাচ্ছেন সেরেনা উইলিয়ামস। হিসাব অনুযায়ী তাঁর জন্য শিরোপা জেতা একটু সহজই হয়ে গেল বৈকি!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here